Royal Enfield একটি নাম যা আপনাকে অভিজ্ঞতা দেবে! দামী বাইক পেতে শোরুমে ভিড়, এবং বিক্রি প্রক্রিয়া আপনাকে অবাক করবে।

Jacksons

Royal Enfield

গত বছরের নভেম্বরে, ভারতের অ্যাডভেঞ্চার বাইক জগতে একটি মেঘালয়ের উচ্চতম পর্বে ডাকা উঠেছিল Royal Enfield Himalayan 450। এই মোটরসাইকেলটি অন্যত্রের সাথে তুলনায় অনেক আলাদা, কারণ এনফিল্ড এখানে লিকুইড কুল্ড ইঞ্জিন ব্যবহার করে। এটির টুইন স্পার প্লাটফর্ম এবং কানেক্টেড ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট কনসোল একটি নতুন প্রযুক্তির প্রতীক, যা এই বাইকে আরও আকর্ষণীয় করে। এ নতুন প্রজন্মের হিমালয়ান একেবারে প্রাক মুহুর্ত থেকেই জনপ্রিয়তার শিখরে উঠেছে।

এনফিল্ড এই জনপ্রিয়তার পেছনে দাঁড়িয়েছে এক নতুন রেকর্ড সেট করে। সংস্থার মুখ্য কার্যনির্বাহী অধিকারী বি গোবিন্দরাজন উল্লেখ করেছেন যে, চলতি বছরের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই ৬,৫০০টি হিমালয়ান ৪৫০ বিক্রি করা সম্ভব হয়েছে। এ প্রতিষ্ঠানিক বিজয়ের পরে আরও এই অ্যাডভেনচার বাইকের উৎপাদন বাড়ানো হবে বিভিন্ন ধাপে। এই বাইকটির আন্তর্জাতিক বাজারে ডেলিভারির জন্য প্রোডাকশন এগিয়ে রাখা হবে বলে জানানো হয়েছে।

হালকা অনুমান অনুযায়ী, হিমালয়ান ৪৫০ এখনো বিশ্ব বাজারে তার পছন্দ জানানো সংখ্যা অবশ্যই একটি বিশ্বাসযোগ্য পরিমাণ পেয়েছে, কিন্তু সে সংক্রান্ত কোনও আধিকারিক তথ্য এখনো উপলব্ধ নয়।

রয়্যাল এনফিল্ড Himalayan 450 এখন পূর্ণভাবে নতুন K সিরিজের প্ল্যাটফর্মে নির্মিত হয়েছে। ভবিষ্যতে, এই প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে রয়্যাল এনফিল্ড অন্যান্য পণ্যগুলির লঞ্চ করবে। এই নতুন প্লাটফর্মের মূল বৈশিষ্ট্যগুলির মধ্যে Sherpa 450 ইঞ্জিনটির উল্লেখযোগ্য। আন্তর্জাতিক পরিস্থিতিতে মোটরসাইকেলের গড় গতিবেগ প্রতি ঘণ্টায় ১২০-১৩০ কিমি যা আমাদের দেশের সাধারণ পরিস্থিতিতের তুলনায় অনেকটাই বেশি। তাই, রয়্যাল এনফিল্ড এবার ছোট এবং পকেট সাশ্রয়ী ৩৫০ সিসির মডেলগুলির জন্য J সিরিজের প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করছে। আরও পারফরমেন্স এবং উন্নত প্রযুক্তির প্রয়োজনে, K সিরিজের প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে তারা মোটরসাইকেলগুলি তৈরি করতে যাচ্ছেন।

রয়্যাল এনফিল্ড হিমালয়ান ৪৫০ একটি নতুন সফরের স্বাদ দেবে যা একে হাইওয়ে পারফরম্যান্সের শীর্ষে তুলে ধরে। এই নতুন মডেল উপনিবেশ করে শক্তিশালী ৪৫২ সিসির লিকুইড কুল্ড ইঞ্জিন যা সর্বোচ্চ ৮০০০ আরপিএম গতিতে সবচেয়ে বেগবান এবং দক্ষিণ এশিয়ায় একটি অত্যন্ত উচ্চ স্পীড এর সাথে পরিবারকে সুরক্ষিত করে তুলবে। ইঞ্জিনের মাধ্যমে এই বাইক সর্বাধিক ৩৯.৪ বিএইচপি ক্ষমতা এবং ৫৫০০ আরপিএম গতিতে সর্বাধিক ৪০ এনএম টর্ক তৈরি করতে পারে।

এই নতুন হিমালয়ান ৪৫০ বাইকের সাসপেনশন একটি আধুনিক উন্নত সংযোজনের সাথে যুক্ত হয়েছে। এর সামনের দিকে ৪৩ মিমি চওড়া উল্টানো ফর্ক এবং পিছনে মনোশক অ্যাবজর্ভার রয়েছে যা অত্যন্ত স্থিতিশীলতা এবং বাইকের সঙ্গী যাত্রীদের কোম্পাক্ট এবং আনন্দময় অভিজ্ঞতা প্রদান করবে। এছাড়াও, সামনে ২১ ইঞ্চি ও পিছনে ১৭ ইঞ্চির স্পোক যুক্ত চাকা যা বাইকের নিরাপত্তা এবং সহনশীলতা বাড়াতে সাহায্য করে।

রয়্যাল এনফিল্ড হিমালয়ান ৪৫০ এর দাম বর্তমানে ২.৮৫ লাখ টাকা থেকে শুরু হয়েছে এবং এর সর্বোচ্চ দাম একসোরোমে পাঁচ হাজার টাকা। এই মূল্যে বাইকটি ব্যবহারকারীদের সাথে যেকোনো জায়গায় যাওয়ার সুযোগ দেবে এবং তাদের জীবনকে সহজ ও স্বতন্ত্রভাবে স্থান দেবে। এই উন্নত প্রযুক্তিগত বাইকটির মাধ্যমে বাইক প্রেমিদের চাপ থেমে দেবে এবং সাফল্য সংগ্রহে আরো এগিয়ে যাবে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য

বাংলাদেশে মোটরসাইকেল বিমা অবশ্যই প্রয়োজন। রয়্যাল এনফিল্ড বাইক গুলিও বিনা বিমা চলবে না।

বাংলাদেশে রয়্যাল এনফিল্ড বাইক সহজেই পাওয়া যায় এবং বিভিন্ন মডেল এবং বড় ভর্তির সাথে বিক্রিত হয়।

রয়্যাল এনফিল্ড বাইক গুলির জন্য বাংলাদেশে সরবরাহকারী এবং পরিষেবা প্রদানকারী অনেকগুলি শোরুম রয়েছে। এগুলি বাইকের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় মেয়াদের সার্ভিস, পার্টস পরিবর্তন এবং প্রয়োজনে মেশিনের মেরামত সরবরাহ করে।

হ্যাঁ, রয়্যাল এনফিল্ড বাইকে বাংলাদেশে গাড়ি লোনের সুবিধা প্রদান করা হয়। এটি কয়েকটি ব্যক্তিগত ব্যাংক এবং ফিন্যান্সিয়াল প্রতিষ্ঠান দ্বারা প্রদান করা হয়।

উপসংহার

Leave a Comment