মারুতির লেজেগোবরে অবস্থায় Mahindra Thar-কে টেক্কা দিতে গিয়ে, বিক্রি দু’শোও পেরোল না।

Jacksons

Mahindra Thar

বর্তমানে ভারতের লাইফস্টাইল এসইউভি-র বাজারে একটি অবশ্যই চমৎকার পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। অনেকে এখন হ্যাচব্যাক মডেলের সাথে প্রাথমিকতা দেওয়ার পরিবর্তে জাতীয় গাড়ি, যেমন Maruti Suzuki Jimny ও Mahindra Thar, প্রতি দিন অধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করছে। উক্ত সেগমন্টে, জিমনি এবং থার দুটি পরিচিত মডেল হিসেবে পরিচিত, তবে বিক্রিত সংখ্যা দিক থেকে জিমনি কেমন কাটায় অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে থারের সমান। জানুয়ারিতে জিমনির বিক্রি পরিসংখ্যান দেখে কপালে ভাঁজ বেড়েছে মারুতি সুজুকির।

এই পরিবর্তনের পেছনের প্রধান কারণ হলো জিমনির সহজলভ্যতা এবং ভালো মানের সাথে যুক্ত অনুভূতি। জিমনি একটি সহজেই চালানো যাবে এবং গুরুত্বপূর্ণভাবে সহনশীল মানকে সংরক্ষণ করে। এছাড়াও, এটি স্থানীয় বাজারে আধুনিক সুবিধা এবং প্রযুক্তি সরবরাহ করে, যা এই গাড়িকে একটি অভ্যন্তরীণ গতি প্রদান করে। এ কারণে জিমনি আগামীতে এই সেগমেন্টে আরো বৃদ্ধি অর্জন করতে পারে।

Maruti Suzuki Jimny এবং Mahindra Thar: কোনটি বেশি জনপ্রিয়?

বেশিরভাগ মানুষের কাছে পরিচিত না, তবে আন্তর্জাতিক বাজারে Mahindra Thar-এর উত্কৃষ্ট জনপ্রিয়তা একটি উল্লেখযোগ্য সত্তা। Maruti Suzuki Jimny এই সংস্থার অন্যতম জনপ্রিয় মডেল হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে বিশ্বব্যাপীতেও। তবে, এই জনপ্রিয়তা নিয়ে সম্প্রচারে অবস্থা সৃষ্টি করতে পেরেনি Maruti Suzuki। এতে চেষ্টা করে ২০২৩-এ ভারতের বাজারে তারা এই গাড়িটি লঞ্চ করেছিলেন। এদিকে তারা আশা করেছিলেন যে, Thar-কে টক্কর দিয়ে সকলের প্রিয়তম হয়ে উঠতে পারবেন। কিন্তু পরিস্থিতি সেইভাবে প্রত্যাশিত হয়নি। ২০২৪-এর জানুয়ারিতে জিমনি বিক্রি হয়েছে মোট ১৬৩ ইউনিট, যেখানে সাথে তুলে ধরা যায় থার-এর ৬,০০০ এর বেশি মডেল বিক্রি হয়েছে।

২০২০ সালে Mahindra Thar প্রথম বাজারে প্রবেশ করে। এর প্রথম থেকেই বাজারে একটি প্রাচুর্যমান আগ্রহ ছিল। এর জনপ্রিয়তা এবং অন্যান্য গুণগুলি সমান্য সামগ্রিক এটিকে বাজারে আকর্ষণীয় করেছিল। তার জন্য অপেক্ষা প্রতিটি গ্রাহকের জন্য কাছাকাছি থাকতে হতো। ২০২৩ সালের আগস্টে, তারা মোট ৩,১০৪ ইউনিটের মধ্যে Jimny মডেলটি ভারতীয় বাড়িতে এনেছিলেন। কিন্তু সেপ্টেম্বরে বিক্রি হয় ২,৬৫১ ইউনিট, অক্টোবর, নভেম্বর ও ডিসেম্বরে বিক্রি পরিমাণ অনেক কমে আসে, যথাক্রমে ১,৮৫২ ইউনিট, ১,০২০ ইউনিট ও ৭৩০ ইউনিট।

এই পরিস্থিতি দেখে মারুতি সুজুকির কোন চিন্তা কিন্তু নেই। এটি একটি গবেষণা এবং উন্নয়নের জন্য একটি বিকল্প হিসেবে গড়ে তুলতে পারে।

গত বছরের ডিসেম্বরে, Thar-এর ৫,৭৯৩ ইউনিট বিক্রি হয়েছিল। সাম্প্রতিক জানুয়ারিতে, এই সংখ্যা ৬,০৫৯ ইউনিটে বাড়িয়ে যায়, যা নিজের বেচাকেনা সংখ্যা অতিক্রম করে। Maruti Suzuki Jimny এখন NEXA থেকে বিক্রি হচ্ছে, এর মূল্য ১২.৭৪ লাখ থেকে ১৪.৭৯ লাখ (এক্স-শোরুম) পর্যন্ত পৌঁছানো হয়েছে। তবে, সালের শেষে, ২০২৩ ডিসেম্বরে, সুজুকি জিমনি এর একটি বিশেষ ভ্যারিয়েন্ট লঞ্চ করে, যা ১০.৭৪ লাখ টাকা (এক্স-শোরুম) এ নির্ধারণ করা হয়েছিল।

Mahindra Thar-এর রিয়ার হুইল ড্রাইভ মডেলটি কিনতে খরচ পড়ে ১১.২৫ লাখ টাকা (এক্স-শোরুম) এবং এর টপ-এন্ড মডেলের মূল্য ১৭.২০ লাখ টাকা (এক্স-শোরুম)। এই মডেলে অটোমেটিক ট্রান্সমিশন এবং ডিজেল ইঞ্জিন সহ সুযোগ পাওয়া যায়। এই মডেল গুলি উন্নত পারফর্মেন্স এবং সমৃদ্ধ অটোমোটিভ ফিচার সম্পন্ন। এদিকে, Maruti Suzuki Jimny এর একটি আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য হল এর আকর্ষণীয় ডিজাইন এবং স্থিবিত সহজে চালানো যাবে এমন গতির সহজতা।

এই দুটি ব্র্যান্ডের উপাদান মিশে এই বছরের মাধ্যমে বাজারে নতুন চিহ্ন সৃষ্টি হচ্ছে যার জন্য প্রশংসার মতো অপেক্ষা করা হচ্ছে। গাড়ি উৎপাদন সার্কিটে এই দুই ব্র্যান্ডের মধ্যে বৃহত্তর প্রতিস্থাপনের লক্ষ্য করে কাজ চলছে, এবং উল্লেখযোগ্য প্রগতি অবলম্বন করা হচ্ছে। এই প্রগতিতে নতুন উদ্ভাবন এবং উন্নত টেকনোলজির ব্যবহার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য

মাহিন্দ্রা থারের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো তার রুফ স্থাপনা সহ ওপেন-টপ ডিজাইন, সঠিক অবস্থায় চালায় কার্যকর পাওয়ারফুল ইঞ্জিন, গাড়ির শুক্ষতা, এবং সহজে নামানোর সুবিধা।

মাহিন্দ্রা থারের বিভিন্ন মডেলে পাওয়া যায় একেবারে বিভিন্ন ইঞ্জিন অপশন, তবে সাধারণত এর ইঞ্জিন স্পেসিফিকেশন হলো 2.0-লিটারের ডিজেল বা 2.0-লিটারের পেট্রল ইঞ্জিন।

মাহিন্দ্রা থারের মূল্য বিভিন্ন মডেল এবং পরিস্থিতি অনুযায়ী পরিবর্তন করে। সাধারণত, তার মূল্য শুরু হয় ১১.২৫ লাখ টাকা থেকে।

মাহিন্দ্রা থারের বিক্রি সরকারি বা বেসরকারি শোরুম থেকে করা যায়, এছাড়া এর জন্য অনলাইনে আদান-প্রদানের সুযোগ রয়েছে।

উপসংহার

মাহিন্দ্রা থার একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রিয় গাড়ি যা প্রকৃত অদম্য সাহসের সাথে একইসাথে বিভিন্ন প্রকারের অবস্থায় একইসাথে চালানো যায়। এই গাড়িটির বিশেষ বৈশিষ্ট্য এবং সঠিক অবস্থায় চালানোর সুবিধা তাড়াতাড়ি একটি প্রিয় অপশন হিসেবে স্বীকৃত হয়েছে। এর সঠিক বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য অর্জন করে গাড়িটি প্রারম্ভিক এবং মৌলিক অবস্থায় বিক্রি করা যেতে পারে। মারুতির লেজেগোবরে অবস্থা এবং এই গাড়ির উচ্চ জনপ্রিয়তা সহ বিক্রির দামের উন্নতি দেখে মাহিন্দ্রা থার একটি স্বর্ণিম অপশন হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। এটি বাংলাদেশে একটি গুরুত্বপূর্ণ পজিশন অধিকার করতে পারে এবং সঠিক দামে গ্রাহকদের জন্য উপলব্ধ হতে পারে।

Leave a Comment