চালকদের সুবিধার জন্য চুপিসারে গাড়িতে নতুন ফিচার যুক্ত করল Tata Motors

Jacksons

Tata Motors

টাটা মোটরসের হ্যাচব্যাক সেগমেন্টের একটি শীর্ষ বিক্রি গাড়ি হল Tiago। এই গাড়িটি তার ভালো সুরক্ষা ব্যবস্থা এবং অত্যাধুনিক ফিচারের জন্য পরিচিত। Tiago এর একটি আরেক মজার বৈশিষ্ট্য হলো তার আইসি ইঞ্জিন, যা গাড়ির পাশাপাশি সিএনজি এবং ইলেকট্রিক ভার্সন দুটিরও উপলব্ধি রয়েছে। এবারে, Tiago.ev-র XZ+ Tech LR ভ্যারিয়েন্টে টাটা নিজেই গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি ফিচার যোগ করেছে।

Tiago.ev-র XZ+ Tech LR ভ্যারিয়েন্টে টাটা মোটরস নিয়েছে অনেকগুলি মুখ্য অবগতির ফিচার। এই গাড়ির মধ্যে স্মার্ট পরিদর্শন সিস্টেম, পার্কিং সেন্সর, রিভার্সিং ক্যামেরা এবং ড্রাইভার এয়ারব্যাগ সহ অনেক উন্নত সুরক্ষা ফিচার রয়েছে। এছাড়াও, এই গাড়ির অত্যাধুনিক কন্ট্রোল প্যানেল এবং মাল্টিফাংশনাল স্টায়ারিং ওয়ালের সাথে গাড়ির নির্ভরযোগ্যতা এবং সহজ চালনায় যোগদান করে। এই নতুন ফিচার সহজেই টাটা Tiago এর গুনগত মূল্য বাড়ায় এবং গাড়িটি এখন আরও আকর্ষণীয় হয়েছে তার ক্রেতাদের মধ্যে।

Tata Tiago EV-এ নতুন ফিচার আপডেট পাওয়া গেছে।

Tiago.ev XZ+ Tech LR এর নতুন আপডেটে অটো ডিমিং সুবিধা সহ আইআরভিএম (IRVM) বা ইনসাইড রিয়ার ভিউ মিরর সহজতম গতি আনেছে। এখন চালককে দিনের পর রাতে ম্যানুয়ালি সুইচ ফ্লিপ করতে হবে না, কারণ গাড়ির হেডলাইটের প্রতিফলন চালকের দৃষ্টিতে কোনো সমস্যা তৈরি করে না। এই অভিজ্ঞতা চালকদের গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে অত্যন্ত সুবিধা এবং নিরাপত্তা সরবরাহ করবে।

এছাড়াও, XZ+ ভ্যারিয়েন্টে এখন পাওয়া যাবে ৪৫ ওয়াট ইউএসবি পোর্ট, যা মোবাইলের ব্যাটারি দ্রুত চার্জ করবে। আরওতে, ‘পোলেন এয়ার ফিল্টার’ এবং অটো ফোল্ড আউটসাইড রিয়ারভিউ মিরর এই মডেলে সম্মিলিত করা হয়েছে। এই পরিবর্তনের ফলে গাড়ির মূল্যে কোনো পরিবর্তন হয়নি, তবে ব্ল্যাক রুফ সরানো হয়েছে সব ভ্যারিয়েন্ট থেকে। তাই, টাটা এই নতুন আপডেটের মাধ্যমে গাড়ির সুনাম এবং কারগরী সুবিধা বৃদ্ধি করেছে, যা গাড়ি উপভোগ করার অভিজ্ঞতা আরও সুবিধাজনক করবে।

উপরিউক্ত পরিবর্তনের মাধ্যমে Tiago.ev XZ+ Tech LR মডেলটির বোধহয় উন্নত হয়েছে এবং গাড়ির অভিজ্ঞতা আরও সুবিধাজনক হয়েছে। নতুন ইউএসবি পোর্ট এবং পোলেন এয়ার ফিল্টারের সাথে অটো ফোল্ড আউটসাইড রিয়ারভিউ মিরর সহ অত্যন্ত সুবিধাজনক বৈশিষ্ট্য সম্মিলিত করা হয়েছে। এই মডেলটি সম্প্রতি আপডেট হয়েছে, তবে তার মূল্যে কোনো পরিবর্তন হয়নি, যার ফলে কাস্টমারদের গাড়ি উপভোগ করার অভিজ্ঞতা নতুন এবং সুবিধাজনক হয়েছে।

Tata Tiago EV-র মিডিয়াম রেঞ্জ ভ্যারিয়েন্ট ফুল চার্জে 250 কিলোমিটার পথ অতিক্রম করতে পারে। এটির লং রাইড ট্রিমের সাথে তুলনায়, যা 315 কিলোমিটার রেঞ্জ প্রদান করে। উভয় ভার্সনেই অফার করা হয় 3 বছর অথবা 1,25,000 কিলোমিটারের (যেটি আগে হবে) ওয়ারেন্টি এবং ব্যাটারি প্যাক এবং মোটরের ওপর দেওয়া হয় 8 বছর অথবা 1,60,000 কিলোমিটারের (যেটি আগে হবে) ওয়ারেন্টি।

এই নতুন সংস্করণে, ফোর লেভেল ব্রেক রি-জেনারেশন এবং দুটি ড্রাইভিং মোড সহ মডেলগুলি অফার করা হয়েছে। মিডিয়াম রেঞ্জ ভার্সনের ইলেকট্রিক মোটর থেকে সর্বোচ্চ 60 বিএইচপি শক্তি এবং 110 এনএম টর্ক পাওয়া যায়। আবার লং রেঞ্জ ভার্সনের আউটপুট 73 বিএইচপি এবং 114 এনএম।

এই নতুন ফিচার সহ টাটা টিয়াগো ইভি এবং এটির লং রেঞ্জ ভার্সন সমৃদ্ধ চার্জিং ক্যাপাসিটি ও লংটার্ম ওয়ারেন্টির সাথে বাজারে আসছে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য

এই ফিচারের মাধ্যমে গাড়ির ইঞ্জিনের শব্দ স্তর হ্রাস করে গাড়ির যাত্রীদের কম আতঙ্ক করে দেয়া হয়। এটি চালকদের অভিজ্ঞতা মোহূর্তে আরও উপভোগযোগ্য করে তোলে।

এই ফিচারের মাধ্যমে গাড়ির ইঞ্জিন অটোমেটিকালি অন/অফ হয়ে যায় যখন গাড়ি একটি স্থানে এবং সামনের সকল সেন্সরগুলি স্থিত হয়ে যায়।

স্যাইলেন্ট ড্রাইভ' ফিচারের সাথে অন্যান্য সুবিধা হিসাবে দেয়া হয়েছে অটোমেটিক পার্কিং, পৃষ্ঠান্ত ক্যামেরা, দিকনির্দেশক সেন্সর, এসি ও সেটেলাইট নেভিগেশন।

চালকগুলি বাধ্য হবেন না 'স্যাইলেন্ট ড্রাইভ' ফিচার অন/অফ করতে। গাড়ি যখন স্থিতিশীল হবে, তখন অটোমেটিকালি ফিচার অফ হয়ে যাবে, এবং গাড়ি চালনার সময় স্যাইলেন্ট ড্রাইভ সক্রিয় হবে।

উপসংহার

চালকদের সুবিধার জন্য টাটা মোটর্স নতুন একটি ফিচার সংযুক্ত করেছে, যা গাড়ি চালনা এবং অভিজ্ঞতা আরও সহজ ও সুরক্ষিত করবে। চুপিসারে গাড়িতে এই নতুন ফিচার যুক্ত করা হয়েছে যাতে চালকরা দিনের পর রাতে সুইচ ফ্লিপ করতে না হয় এবং গাড়ির হেডলাইটের প্রতিফলন চালকের দৃষ্টিতে কোনো সমস্যা সৃষ্টি না হয়। এটি চালকদের গাড়ি চালানোর অভিজ্ঞতা উন্নত করে এবং তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। এই পরিবর্তনের মাধ্যমে টাটা মোটর্স তাদের গাড়ি ব্র্যান্ডটির মান এবং উত্কৃষ্টতা বৃদ্ধি করে নিয়েছেন, এবং গাড়ির ব্যবহারকারীদের মধ্যে আরও জনপ্রিয় করেছেন।

Leave a Comment