Vivo একটি বাজেট ফ্রেন্ডলি ফোল্ডিং ফোন উপস্থাপন করছে, যা Samsung এর প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে আসছে। এই ফোনের ফিচারগুলি সম্পর্কেও বিশেষ গবেষণা চলছে।

Jacksons

Samsung

Vivo X Fold 3 সিরিজের ফোল্ডেবল ফোনগুলির প্রযুক্তিগত উন্নতি এবং সম্প্রতির মোডেল দুটি, Vivo X Fold 3 এবং Vivo X Fold 3 Pro, চীনের এমআইআইটি (MIIT) সার্টিফিকেশন প্ল্যাটফর্ম দ্বারা অনুমোদিত হয়েছে। এই অনুমোদন দ্বারা সংগ্রহিত তথ্য দেখায় যে, এই নতুন সিরিজের ফোনগুলির সংজ্ঞায়িত মান, কর্মক্ষমতা এবং ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতা উন্নত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন উন্নত প্রযুক্তি সংযোজন করা হয়েছে। এই অবস্থানে, ব্যবহারকারীদের আশা এবং সম্মতির বৃদ্ধির দিকে ভিভোর স্বেচ্ছায় অবদান রয়েছে।

তথ্যের অনুযায়ী, Vivo X Fold 3 সিরিজের সংজ্ঞায়িত তথ্যের ফাঁসে প্রকাশিত হয়েছে যে, এই ফোনগুলি উচ্চ গতির 5G নেটওয়ার্ক সমর্থন করবে, এবং তাদের নতুন এবং উন্নত প্রকারের ডিজাইন আকর্ষণীয় এবং আধুনিক দেখতে পাওয়া যাবে। প্রায় সমস্ত নতুন ফিচার এবং টেকনোলজি এই ফোনগুলিতে অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে, যা ব্যবহারকারীদের সাথে আরও সংযুক্ত করে তাদের অভিজ্ঞতা উন্নত করবে। ফোল্ডেবল ফোনগুলির এই নতুন প্রযুক্তিগত অধিকার উঠানোর মাধ্যমে ভিভো প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিত্ব এবং প্রায় সারা বিশ্বের মোবাইল বাজারে নিজের অংশ দৃষ্টিগোচর করার পরিকল্পনা তৈরি করা হয়েছে।

Specifications of the Vivo X Fold 3 series সিরিজের স্পেসিফিকেশন

টিপস্টার ডিজিটাল চ্যাট স্টেশন সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করেছেন যে, ভিভো এক্স ফোল্ড ৩ সিরিজ আপগ্রেডেড স্ক্রিন রেজোলিউশনের সাথে আসবে। এই আপগ্রেডেড স্ক্রিনের বিষয়ে তারা কোনও নির্দিষ্ট রেজোলিউশন প্রকাশ করেননি তবে পূর্বের মডেলের স্ক্রিনের তুলনায় ভালোবেশে রেজোলিউশনে আপগ্রেড হবে বলে মনে করা যাচ্ছে। ভিভো এক্স ফোল্ড ২-এর প্রাইমারি ডিসপ্লেটি আকর্ষণীয় ২কে রেজোলিউশন অফার করে, যা এই সিরিজের আগের ভার্সনের তুলনায় উন্নত ধারণকে নিশ্চিত করে।

তাই উত্তরসূরি মডেলগুলির রেজোলিউশন কত হবে, সেটাই এখন দেখার ক্ষেত্রে চেষ্টা করা যাবে। প্রত্যেক নতুন আপডেটে ভিভো এক্স ফোল্ড সিরিজ আরও স্মার্ট টেকনোলজি অভিজ্ঞতা উন্নত করে তুলে ধরে এবং এই নতুন প্রযুক্তিগুলির মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতা আরো অসাধারণ করে। অতএব, সম্পূর্ণ রূপে উন্নত স্ক্রিন রেজোলিউশনের ভিভো এক্স ফোল্ড ৩ সিরিজের আগামীকালের একটি অত্যন্ত অপেক্ষিত ফিচার হতে পারে।

টিপস্টার জানিয়েছেন যে, ভিভো এক্স ফোল্ড ৩ সিরিজে ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা থাকবে। পূর্বেই উল্লেখ করা হয়েছিল যে, এই সিরিজের ফোল্ডিং ফোনের পিছনে অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন (OIS) সহ ৫০ মেগাপিক্সেলের ওভি৫০এইচ প্রাইমারি ক্যামেরা থাকতে পারে। এছাড়াও, এটি আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং ৬৪ মেগাপিক্সেলের পেরিস্কোপ টেলিফোটো ক্যামেরার সাথে সম্মিলিত হবে বলে জানানো হয়েছে। তবে, এই পেরিস্কোপ লেন্সটি স্ট্যান্ডার্ড মডেলে অনুপস্থিত হতে পারে।

এই নতুন ফোনের এই বৈশিষ্ট্যগুলির জন্যে ব্যক্তিগত ফটোগ্রাফি প্রেমীদের মধ্যে অত্যন্ত উৎসাহ ও আশাবাদ রয়েছে। এই ক্যামেরা ফোনের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকারের ছবি তোলা ও সাজানোর সুযোগ তাদের কাছে অনেক উপকারী হতে পারে। একেবারেই এই প্রযুক্তির সাথে যুক্ত করে ব্যবহারকারীদের ক্রিয়েটিভিটি বৃদ্ধি দেয়ার আশা রয়েছে।

টিপস্টার সূত্রের অনুযায়ী, ভিভো তাদের পরবর্তী ফোল্ডেবল ডিভাইসগুলির ওজন কমাতে চাইতেছেন। এই ফোল্ডেবল ডিভাইসগুলি আশা করা হচ্ছে ফোমগুলিতে আল্ট্রাসনিক ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর এবং ৫০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করবে। এটা ব্যবহারকারীদের জন্য অনেক সুবিধা সৃষ্টি করতে পারে।

আগের রিপোর্ট অনুযায়ী, Vivo X Fold 3 Pro একটি প্রিমিয়াম ডিভাইস হবে, যেটি Qualcomm Snapdragon 8 Gen 3 চিপসেট সহ আসবে। এটি বড় ৫,৭০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং ১০০ ওয়াট ওয়্যার্ড চার্জিং সাপোর্ট করতে পারে। এই ডিভাইস নিউ এজ টেকনোলজির সাথে যুক্ত হবে এবং ব্যবহারকারীদের জন্য একটি ভাল অভিজ্ঞতা উপহার দেবে।

আরও একটি উল্লেখযোগ্য বিষয়, Vivo X Fold 3 মডেলটি একটি আরও বেশি বাজেট-ফ্রেন্ডলি ফোল্ডেবল ফোন হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এই ফোনটির সঙ্গে Qualcomm Snapdragon 8 Gen 2 চিপসেট আসতে পারে যা এর কার্যক্ষমতা এবং দ্রুততা বাড়াতে সাহায্য করতে পারে। এর অতিরিক্তে, এতে ৫,৬০০ এমএএইচ ব্যাটারি থাকা উচিত বলে ধারণা করা হচ্ছে। শুনা গিয়েছে যে, ভিভো মার্চ মাসে চীনে একটি বড় লঞ্চ ইভেন্ট আয়োজন করবে। এই ইভেন্টে ব্র্যান্ডটি তাদের নতুন ফোল্ডেবল ফোনগুলির উন্মোচন করতে পারে যা বাজারে আগত প্রতিযোগিতামূলক মানে উত্সাহী সম্প্রতি চিন্তা করা হচ্ছে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য

এই ফোনের মধ্যে তার মূলত হিংসা ডাবল ডিসপ্লে ফিচার থাকতে পারে, যেখানে একটি ছোট ডিসপ্লে এবং একটি বড় ডিসপ্লে থাকতে পারে। আরও অনেক ফিচার এই ফোনে উপস্থিত থাকতে পারে, যেগুলোর মধ্যে ব্যবহারকারীরা সুবিধা পাবেন।

ফোনের মূল্য বিষয়ে এখনো কোনো সুনাম জানা গেছে না, তবে আশা করা হচ্ছে এটি প্রায় ১০,০০০ টাকা থেকে ২০,০০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।

ব্যাটারি বিষয়ে এখনো সুনাম নেই, তবে আশা করা হচ্ছে এটি পর্যাপ্ত সময় চালিয়ে যাওয়ার জন্য প্রায় ৩,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি থাকবে।

সাধারণভাবে, আমাদের এই ফোন প্রচলিত ব্যবহারের সমস্ত সমস্যার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণভাবে চালিয়ে যাবে। তবে, এটির ব্যবহারের পূর্বে বিশেষভাবে সুনিশ্চিত করতে হবে যে এটির সমস্ত ফিচার সম্পূর্ণরূপে কার্যকর।

No Content

আঘাত

Samsung-কে টেক্কা দিতে বাজেট ফ্রেন্ডলি ফোল্ডিং ফোন আনছে Vivo এবং এই সামারীতে ফিচার্সেও একটি গভীর নজর কাঁটা উচিত। ভিভোর প্রতিষ্ঠিত এই ফোন প্রযুক্তিগত উন্নতি সাথে আসে এবং ব্যবহারকারীদের জন্য নতুন সুবিধা উপস্থাপন করে। এই ফোনে আশেপাশের প্রযুক্তিগত প্রগতির সাথে মিলিয়ে নিতে গিয়ে একটি সুনামধন্য অভিজ্ঞতা সরবরাহ করা হয়েছে। এটি ব্যবহারকারীদের প্রতিদিনের জীবনে বিভিন্ন সুযোগ সৃষ্টি করে তাদের প্রয়োজনীয়তা মেটাতে। এই ফোনের মাধ্যমে Vivo স্বার্থপর উদ্যোগ নেওয়ার চেষ্টা করেছে যাতে তাদের ব্যবহারকারীরা উচ্চ সুবিধা ও উন্নত প্রযুক্তির আসফালন অনুভব করতে পারেন।

Leave a Comment