Poco iQOO এই সমীক্ষায় বলা হয়েছে যে, অ্যাপল এবং স্যামসাং বাদ দিয়ে নতুন প্রজন্মের সবচেয়ে পছন্দের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড এটাই।

Jacksons

Poco iQOO এই সমীক্ষায় বলা হয়েছে যে, অ্যাপল এবং স্যামসাং বাদ দিয়ে নতুন প্রজন্মের সবচেয়ে পছন্দের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড এটাই।

বর্তমানে জেন জি বা ১৯৯৭ সালের পর জন্মগ্রহণ করেননি তারা, তাদের প্রধান ইচ্ছা হয়ে উঠেছে স্মার্টফোন ব্র্যান্ড বেছে নেওয়ায় এবং সেই তালিকায় শাওমির সাব-ব্র্যান্ড পোকো দখল করেছে শীর্ষস্থানে। একটি নতুন সমীক্ষায় প্রকাশিত হয়েছে যে, নবীন প্রজন্মের তরুণ-তরুণীদের জন্য স্মার্টফোন বাছাই করতে গিয়ে এই পোকো ব্র্যান্ডটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়েছে। সমীক্ষাটি ফোকাস করেছে যে, নবীন প্রজন্মের লোকজন তাদের পছন্দ-অপছন্দের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড বাছাই করার সময়, ব্র্যান্ডের প্রজন্মকে গুরুত্ব দেন।

এই সমীক্ষায় তিনটি প্রধান স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হচ্ছেন শাওমি, রিয়েলমি, এবং পোকো, যেগুলি নবীন প্রজন্মের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হয়েছে।

Poco, iQOO, এবং Nothing ব্র্যান্ডগুলি জেন-জি ক্রেতাদের মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয়।

টেকআর্কের ‘ইন্ডিয়া জেনজি স্মার্টফোন ব্র্যান্ডস ২০২৩’ প্রতিবেদন থেকে প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে যে, ৮০% উত্তরদাতারা জানিয়েছেন যে তারা স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলির সাথে একমত হতে হলে তাদের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে থাকে। এছাড়া, ৭৩% উত্তরদাতারা মনে করেন যে ব্র্যান্ডগুলি তাদের ব্যক্তিত্বকে প্রতিফলিত করে না এবং ৬৯% উত্তরদাতারা মনে করেন যে তারা তাদের পছন্দের ব্র্যান্ডের প্রোডাক্ট ব্যবহার করে একটি এক্সক্লুসিভ ক্লাব বা কমিউনিটির অংশ হয়ে উঠতে পারেন।

পণ্যের ক্ষেত্রে, জেন জি গ্রাহকরা স্পেসিফিকেশন, দাম এবং ডিজাইনের দিকে তাদের বিবেচনায় জোর দেয়, যেখানে ব্র্যান্ডের ক্ষেত্রে, তাদের পছন্দ ভিসিবিলিটি, রিকল ফ্যাক্টর, সার্ভিসিং, ইনফ্লুয়েন্সার রেপুটেশন ইত্যাদির উপর ভিত্তি করে।

টেকআর্কের অনুযায়ী, পোকো, আইকো এবং নাথিং হল জেনারেশন জেডে সর্বাধিক জনপ্রিয় তিনটি স্মার্টফোন ব্র্যান্ড। এই ব্র্যান্ডগুলি পুরাতন সময় থেকে বিভিন্ন প্রযুক্তিগুলির মাধ্যমে তাদের পণ্য এবং পোজিশনিংয়ে একটি প্রতিষ্ঠান করেছে। ব্র্যান্ডগুলি তাদের পোকো, আইকো এবং নাথিং সিরিজের মাধ্যমে এক্সক্লুসিভিটি সঞ্চয় করেছে, যা তাদের কাস্টমারদের মধ্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

ব্র্যান্ডগুলি সবচেয়ে শক্তিশালী তাদের উন্নত প্রযুক্তি, ডিজাইন, এবং উচ্চ কোয়ালিটি এবং এক্সপেরিয়েন্স এর মাধ্যমে তাদের কাস্টমারদের জন্য আকর্ষণীয় করে তোলা। এই স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলি যাতে তাদের কাস্টমারদের সাথে যোগাযোগ করতে একটি একত্রিত কমিউনিটি তৈরি করেছে, তা একটি উজ্জ্বল বৈশিষ্ট্য।

প্রধাণত, ওয়ানপ্লাসের নর্ড (Nord) এবং রিয়েলমির নার্জো (Narzo) সিরিজ এক্ষেত্রে এক্সক্লুসিভিটি মাধ্যমে সাফল্য অর্জন করা হয়েছে, যেটি সহজেই উত্তরদাতারা দ্বারা স্বীকৃতি পেয়েছে। এই সিরিজগুলি যুব-কেন্দ্রিক প্রোডাক্ট তৈরি করে, যা তাদের মূল নীতির একটি অংশ হিসেবে এক্ষেত্রে এক্সক্লুসিভ অভিজ্ঞতা প্রদান করে। এই এক্সক্লুসিভ সিরিজগুলি তাদের যুব কাস্টমারদের মাঝে একটি উপভোগযোগ্য এবং আকর্ষণীয় স্মার্টফোন অভিজ্ঞতা সরবরাহ করে।

এদিকে, শাওমি এবং ভিভোর সাব-ব্র্যান্ড যেমন Poco এবং Vivo যেগুলি তাদের স্বনির্মিত স্মার্টফোনে একটি নিজস্ব চিহ্ন তৈরি করে তাদের জনপ্রিয়তার জন্য সার্থক হয়েছে। এই সাব-ব্র্যান্ডগুলি তাদের উপভোগযোগ্য ফিচার, দাম, এবং ডিজাইনের সাথে তাদের লক্ষ্য কাস্টমারদের জন্য একটি মানুষবন্ধন তৈরি করতে অবলম্বন করেছে। এই এক্সক্লুসিভিটি মাধ্যমে উপভোগকারীরা তাদের ব্র্যান্ডের প্রোডাক্টে অনুরূপ একটি সংস্থা অনুভব করতে সক্ষম হয়েছে, এবং এটি তাদের লোকসান করার একটি বৃদ্ধি প্রদান করে।

সঠিক মিশ্রণ অফার করা এমন ব্র্যান্ডগুলির প্রতিপরিক্ষেপে, পোকো এখন জনপ্রিয়তা অর্জনে প্রথম স্থানে বিরাজমান হয়েছে। পোকো প্রোডাক্ট এবং ব্র্যান্ড উপাদানগুলির সমন্বিত মিশ্রণের মাধ্যমে পুরস্কৃত হয়েছে এবং তাদের প্রযুক্তি এবং ডিজাইন দিয়ে ব্যবহারকারীদের কাছে এক ধরনের অভিজ্ঞতা দেওয়া হয়েছে। এর পরে দ্বিতীয় স্থানে অপো এবং তৃতীয় স্থানে ওয়ানপ্লাস অবস্থান নিয়েছে। এই ব্র্যান্ডগুলি সমষ্টিতে তাদের ব্যক্তিত্বকে মূল্যায়ন করে এবং তাদের প্রোডাক্ট এবং অফারিংগুলি দ্বারা ব্যবহারকারীদের মাঝে ব্র্যান্ড ইমেজ উন্নত করেছে।

এই প্রবলেমে, স্যামসাং এবং অ্যাপল কিছুটা পিছিয়ে পড়ে, তবে এই দুই ব্র্যান্ডও জেন-জি প্রতি বৃদ্ধি করেছে এবং তাদের ব্যবহারকারীদের মধ্যে আত্মসমর্থন এবং পোজেটিভ অভিজ্ঞতা সৃষ্টি করতে সফল হয়েছে। এই ব্র্যান্ডগুলির কাছে অপেক্ষায় থাকা ব্যবহারকারীদের প্রতি একটি আত্ম-মুল্যায়ন প্রদান করে তাদের সাথে এক ধরনের সংস্থা গড়ে তোলা হয়েছে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য

এই সমীক্ষায় প্রধানত অ্যাপল এবং স্যামসাং ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনগুলি তুলে ধরা হয়েছে, যেগুলি নতুন প্রজন্মের ব্যক্তিদের মধ্যে খুবই জনপ্রিয়।

সমীক্ষায় অ্যাপল এবং স্যামসাং ব্র্যান্ডের বাইরে অন্যান্য কিছু ব্র্যান্ডও তুলে ধরা হয়েছে, তবে এই সমীক্ষা মৌলিকভাবে অ্যাপল এবং স্যামসাংকে মনোনিবেশ করে।

হ্যাঁ, এই সমীক্ষায় কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্যের দিকে তাকিয়ে অ্যাপল বা স্যামসাং স্মার্টফোনগুলির মধ্যে কোনটি উত্কৃষ্ট হতে পারে তা তুলে ধরা হয়েছে।

হ্যাঁ, সমীক্ষায় অনেকগুলি ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন উল্লেখ করা হয়েছে, তবে এটি প্রধানত অ্যাপল এবং স্যামসাং নতুন প্রজন্মের ব্যক্তিদের মধ্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করে থাকে এবং এই ব্র্যান্ডগুলির বৈশিষ্ট্য এবং কার্যক্ষমতা উল্লেখ করা হয়েছে।

উপসংহার

এই সমীক্ষা স্পষ্টভাবে প্রদর্শন করছে যে, নতুন প্রজন্মের ব্যক্তিদের মধ্যে অ্যাপল এবং স্যামসাং স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলি অত্যন্ত জনপ্রিয়। এই দুই ব্র্যান্ডের সংযোজনে উত্কৃষ্ট ডিজাইন, উন্নত প্রযুক্তি, এবং বৈশিষ্ট্যমূলক ক্যাপাবিলিটি উল্লেখযোগ্য। এই ব্র্যান্ডগুলি ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার দিকে প্রযুক্তি উপভোগ করতে এবং একটি একক দিনের ব্যক্তির জীবনকে সহজে সহজে করতে সক্ষম হতে সাহায্য করছে।

ব্যবহারকারীদের পক্ষ থেকে এই সমীক্ষা একটি উচ্চ মানের স্মার্টফোন নির্বাচনে সাহায্য করতে পারে, যেখানে এই দুই ব্র্যান্ড নতুন প্রজন্মের সংগৃহীত এবং জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। উত্কৃষ্ট প্রদর্শন, আধুনিক ফিচারসহ অ্যাপল এবং স্যামসাং ব্র্যান্ডগুলি ব্যক্তিদের সাথে একটি অমূল্যবান অভিজ্ঞতা সরবরাহ করতে বাধ্য হয়েছে, যা স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে আগ্রহ সৃষ্টি করেছে।

Leave a Comment