এপ্রিলেই ইতিহাসে নতুন পালক জুড়ে ভারতের অগ্রগতিতে, যেখানে Google এক প্রধান অংশের ভূমিকা পাবে।

Jacksons

Google

গুগল গতবছরের অক্টোবর মাসে Google Pixel 8 সিরিজটি উন্মোচন করেছে। এই মার্কিন প্রযুক্তি সংস্থার উদ্যোগে বাংলাদেশের প্রথম মুখ্য মার্কেটে তার ফ্ল্যাগশিপ সিরিজের উৎপাদন শুরু করার পরিকল্পনা গড়েছে। এখন একটি তাজা রিপোর্ট জানা গেছে যে, গুগল এবছরের আগামী ত্রৈমাসিকে তার কম্পোনেন্ট সরবরাহকারীদের ভারতে Pixel 8 স্মার্টফোনের উৎপাদন শুরু করতে যাচ্ছে। এটির মাধ্যমে সংস্থাটি ভারতীয় বাজারে আরও দক্ষতা অর্জন করতে পারে এবং মূল্যসহ প্রোডাক্ট প্রস্তুতি করতে পারে। উৎপাদন পরিকল্পনার অনুযায়ী, উন্মোচনের সময় হতে পারে এপ্রিল মাসের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে।

এই পদক্ষেপের মাধ্যমে গুগল সক্ষম হতে পারে স্থানীয় বাজারে প্রতিষ্ঠানের প্রতিস্থাপন। এটি ভারতীয় গ্রাহকদের জন্য উন্নত প্রযুক্তিতে আরও উন্নত অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে তাদের পণ্য এবং সেবার মান বাড়াতে চায়। এই উৎপাদনের মাধ্যমে গুগল অধিক বাজার পড়ার চেষ্টা করছে এবং এটির মাধ্যমে তার পরিস্থিতি ভালোভাবে স্থায়ী করতে চায়।

গুগল এখন ভারতে Pixel 8 স্মার্টফোনের একাধিক প্রোডাকশন ইউনিট স্থাপন করতে উদ্যোগী।

এশিয়ার একটি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে যে, গুগল দক্ষিণাঞ্চলে প্রোডাকশন ফেসিলিটি স্থাপন করছে। মেড ইন ইন্ডিয়া পিক্সেল ৮ প্রো ইউনিটগুলি এপ্রিল থেকে জুনের মধ্যে ভারতে উপলব্ধ হতে পারে। এর পরে, গুগল পিক্সেল ৮ তৈরির জন্য উত্তরাঞ্চলে আরও একটি প্রোডাকশন ইউনিট স্থাপন করতে পারে। এই পদক্ষেপের মাধ্যমে গুগল স্থানীয় উৎপাদন বা ম্যানুফ্যাকচারিং প্রক্রিয়ার উন্নতি এবং সম্প্রচার বাড়ানোর পথে অগ্রগতি করতে চায়।

গুগলের চীন থেকে সাপ্লাই চেইন বিকেন্দ্রীকরণের প্রস্তুতি একটি প্রমুখ পদক্ষেপ। এ পদক্ষেপের মাধ্যমে কোম্পানি চীন ভিত্তিক সাপ্লাই চেইন থেকে স্বাধীনতা অর্জন করতে প্রয়াস করছে, যা গুগলকে ভবিষ্যতে প্রাথমিক অবকাঠামো উপহার করতে সাহায্য করতে পারে। এই পদক্ষেপের মাধ্যমে ভারতে গুগলের উৎপাদন ইউনিটের দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নতির সাথে সাথে সহযোগিতা ও বিনিময় বাড়াতে সক্ষম হতে পারে।

অন্য প্রযুক্তিগত প্রতিষ্ঠানগুলি যেমন অ্যাপল, স্যামসাং ইত্যাদি ইতিমধ্যে ভারতে উৎপাদন ইউনিট বা ম্যানুফ্যাকচারিং প্ল্যান্ট স্থাপন করেছে। এই পদক্ষেপের মাধ্যমে তারা স্থানীয় বাজারে অবস্থান সুরক্ষিত করে তাদের উৎপাদন এবং সেবা পরিষেবা সরবরাহ করতে সক্ষম হয়েছেন।

গুগলের পদক্ষেপের পেছনে ভারতের সরকারের বিশেষ প্রয়াসের কারণে এখন পিক্সেল স্মার্টফোন উৎপাদনের মান এবং পরিমাণে বৃদ্ধি পাবে। ভারতকে প্রযুক্তি উৎপাদনের হাউস হিসাবে পরিণত করার জন্য সরকার কোম্পানিগুলিকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ইনসেন্টিভ প্রদান করছে। এ ধরনের প্রস্তুতি গুগলকে এদেশে একটি প্রাকৃতিক উদ্ভাবন করতে সাহায্য করবে এবং তারা পিক্সেল স্মার্টফোনের সর্বোত্তম মান নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে।

গুগল গত বছরে ভারতে গুগল ফর ইন্ডিয়া (Google for India) ইভেন্টে পিক্সেল স্মার্টফোন তৈরির পরিকল্পনা ঘোষণা করেছিল এবং এখন তারা প্রয়াত করছেন যে এই স্মার্টফোনগুলি ২০২৪ সালের মধ্যে বাজারে আসবে। গুগলের লক্ষ্য হল ভারতে ১০ মিলিয়ন বা ১ কোটিরও বেশি পিক্সেল স্মার্টফোন সরবরাহ করা। এটি প্রাচীনতম ও বাস্তবায়নের জন্য মান ও পরিমাণে ভারতীয় বাজারে একটি অবস্থান অর্জন করা।

গত বছরে প্রায় ১০ মিলিয়ন Google Pixel হ্যান্ডসেট বিক্রি হয়েছিল যা দেখায় যে এই ব্র্যান্ড ব্যবহারকারীদের মধ্যে পছন্দের অবস্থা পেয়েছে। তাদের উত্তোলন এবং প্রযুক্তি উন্নতি করার লক্ষ্যে গুগল ভারতে তাদের প্রোডাকশন ইউনিট স্থাপনে সহায়তা করছে, যা ভারতীয় বাজারে তাদের উপস্থিতি আরো নিশ্চিত করবে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য

গুগলের এই পদক্ষেপের মাধ্যমে ভারতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন ঘটতে পারে, যেমন স্থানীয় বিনিময় ও উৎপাদনের প্রসার, নতুন কর্মীদের সৃজনশীলতা, এবং তথ্য ও প্রযুক্তির বিপুল ব্যবহারের মাধ্যমে বিনিয়োগ ও ব্যবসায়ের বৃদ্ধি।

গলের এই পদক্ষেপের মাধ্যমে ভারতের আমেরিকান প্রতিনিধিত্ব বৃদ্ধি পেতে পারে এবং স্থানীয় বাজারে তাদের উৎপাদন ও পরিষেবা প্রদান সুবিধাজনক হতে পারে। এটি ভারতীয় ব্যবসায়ীদের সাথে পার্টনারশিপ এবং সহযোগিতা বৃদ্ধি করতে পারে এবং স্থানীয় বাজারে গুগলের প্রতিনিধিত্ব ও প্রভাব বাড়াতে সাহায্য করতে পারে।

গুগলের মোবাইল ডিভাইস উৎপাদনের প্রস্তুতি প্রক্রিয়া এই পদক্ষে

No Content

উপসংহার

সম্পর্কের উপর গভীর ভাবনা করলে পাওয়া যায় যে, গুগলের ভারতীয় প্রয়োগান্ত পদক্ষেপ সেই সূচনা করছে যে এপ্রিলে নতুন এক ইতিহাস তৈরি হতে পারে। ভারতের অগ্রগতির এই নতুন পালকে অবদান রেখে এটি বিশেষ গর্বের বিষয় হবে এবং এটি যাতে নতুন ডায়নামিকটি যোগ করবে তা নিশ্চিত হয়ে উঠবে। গুগলের উদ্যোগের ফলে ভারতীয় প্রযুক্তি বাজারে একটি নতুন দিক উঠে এবং সেই বিনি প্রয়োগটির মাধ্যমে ভারতীয় ব্যবসায়িক পরিবেশও উন্নতি পাবে। অগ্রগতির এই নতুন চলচ্চিত্রে গুগলের অবদান বোঝা যায় যে ভারতের ডিজিটাল উন্নতি এখন অনিহার্যতা এবং গুগল একটি প্রধান প্রতিষ্ঠান হিসাবে এ উন্নতির একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসাবে প্রমাণিত হতে পারে।

Leave a Comment