প্রায় 3 কোটি মানুষ নেয়েছেন এই iPhone, আপনি নিজের জন্য এটি পেতে পারেন সর্বনিম্ন ২৩,০০০ টাকা পরিমাণে

Jacksons

iPhone

সম্প্রতি Canalys মার্কেট অ্যানালিস্ট প্ল্যাটফর্ম, যা মানে ২০২৩ সালের অবস্থান উল্লেখ করে, বিশ্বব্যাপী সর্বাধিক বিক্রিত স্মার্টফোনের তালিকা প্রকাশ করেছে। এই প্রকাশিত তালিকাতে আইফোন ও Samsung-এর ফোনগুলি মধ্যে প্রথম ১০ অবস্থান দখল করেছে। এরই মধ্যে Apple iPhone 14, যা অবশ্য কিছুটা পুরোনো, তবে ২৯ মিলিয়ন ইউনিট শিপমেন্টের কারণে তালিকার তৃতীয় স্থানে অবস্থান করেছে। এটি দেখাচ্ছে যে, আইফোন 14 এখনো প্রচুর জনপ্রিয়, যার কারণে এটি এখন তালিকাতে অন্যান্য বিকল্পগুলির মধ্যে মনোনিবেশ পায়নি।

আপনি যদি দীর্ঘদিন ধরে একটি আইফোন কেনার কথা ভেবে থাকেন, তাহলে এটি আপনার জন্য সেরা বিকল্প হতে পারে। এটি সবোচ্চ গাদাগুচ্ছের প্রিমিয়াম ফিচার সমৃদ্ধ স্মার্টফোনের অন্তর্ভুক্তি করে এবং এটি এখন লঞ্চ প্রাইসের থেকে অনেকটা সস্তাতেই কিনতে পারবেন। প্রচুর বৈকল্পিক আর্টের মধ্যে আইফোন 14 একটি অত্যন্ত আকর্ষনীয় অফারে প্রদান করে, যা কারণে এটি বিক্রি চলাকালে একেবারেই জনপ্রিয় হতে পারে। তাই, বেশি কথা না বলে এখন আইফোন 14-এর বর্তমান দাম ও ফিচারসমূহের বিষয়ে নিজেই অনুভব করুন।

ফ্লিপকার্ট আপনাকে iPhone 14 এর সর্বোচ্চ সস্তায় পণ্য পাওয়ার সুযোগ প্রদান করে এবং কোনো সেলের প্রয়োজন নেই।

অ্যাপল আইফোন ১৪ স্মার্টফোনের বেস স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্ট অর্থাৎ ১২৮ জিবি মডেল ৭৯,৯০০ টাকায় লঞ্চ হলেও, এখন ফ্লিপকার্টে এর দাম ৫৮,৯৯৯ টাকায় নেমে এসেছে। অর্থাৎ আপনি এতে সরাসরি ২০,৯০১ টাকা ছাড় পাবেন। এদিকে নির্বাচিত ব্যাঙ্ক কার্ডের মাধ্যমে পেমেন্ট করলে অতিরিক্ত ২,৫০০ টাকার ডিসকাউন্ট পাওয়া যাবে, যার ফলে আইফোনটির দাম দাঁড়াবে ৫৬,৪৯৯ টাকায়। এ প্রসঙ্গে, ফ্লিপকার্টের অফারের মাধ্যমে গ্রাহকরা এখন আইফোন ১৪ খুব একটি স্মার্ট মুল্যে পেতে পারছেন।

ফ্লিপকার্টে পেমেন্টের জন্য নির্বাচিত ব্যাঙ্ক কার্ড ব্যবহার করলে অতিরিক্ত ২,৫০০ টাকার প্রতিটি আইফোন ১৪ অর্ডারের ডিসকাউন্ট পেতে পারবেন। এই অফার ফ্লিপকার্টের গ্রাহকদের জন্য একটি অত্যন্ত আকর্ষণীয় প্রস্তাব। তারা এখন আইফোন ১৪ পেতে অনুপ্রাণিত হয়েছেন যার দাম সম্পর্কে অগ্রাধিকার করে প্রাচুর্যের প্রতীক।

পুরাতন মোবাইল ফোনের অপারেটিং সিস্টেম বা হার্ডওয়্যারে সমস্যা হলে, সংশ্লিষ্ট প্রযোজনে ফোন পরিবর্তনের বিকল্পও সমাধানে স্বাগতম। এখন আপনি পুরানো মোবাইল ফোনটি সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে নতুন একটি ফোনের সাথে পরিবর্তন করে তার বিনিময়ে অনেক সুবিধা পেতে পারেন। এই প্রস্তাবিত বিনিময়ের মাধ্যমে আপনি ৪২,০০০ টাকা পর্যন্তের এক্সচেঞ্জ অফার পেতে পারেন, তবে এই অফারের মূল্য আপনার পুরানো ফোনের বর্তমান অবস্থা, ব্র্যান্ড, মডেল এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের উপর নির্ভর করবে।

এই অফারের মাধ্যমে পুরোনো মোবাইল ফোনটির ব্যবহারের অভ্যন্তরীণ অভিজ্ঞতা বা বাহ্যিক দেখার পরিবর্তে একটি নতুন ফোনে আপনার জীবনের নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন করা সম্ভব। এই বিনিময়ের মাধ্যমে আপনি আপনার প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী নতুন ফিচার বা উন্নতি পেতে পারেন, যা আপনার জীবনকে আরও সহজ এবং আনন্দময় করে তুলতে সাহায্য করবে।

Specification of the Apple iPhone 14 -এর স্পেসিফিকেশন

অ্যাপল আইফোন ১৪-এ ৬.১ ইঞ্চি এক্সডিআর ওলেড (XDR OLED) ডিসপ্লে পাওয়া যায়, যা সিরামিক শীল্ড প্রোটেকশন সহ আসে। পারফরমেন্সের জন্য এতে কোম্পানির নিজস্ব ৫ কোর জিপিইউসহ এক১৫ বায়োনিক প্রসেসর প্রদান করা হয়েছে, সহ থাকছে ৫১২ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনাল স্টোরেজ। এই প্রিমিয়াম হ্যান্ডসেটটি ২০ ওয়াট চার্জিং সাপোর্টসহ লাইটনিং পোর্ট সহজেই সম্প্রসারিত হবে, কোম্পানির অনুযায়ী এটি ২৬ ঘন্টা ভিডিও প্লেব্যাক সাপোর্ট করতে পারে। এদিকে ফটোগ্রাফির বিষয়ে, এই আইফোনে ১২ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা সহ ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ দেখা যাবে। এছাড়াও, ৫জি (5G) কানেক্টিভিটি, ই-সিম সাপোর্ট এবং স্যাটেলাইট কানেক্টিভিটির সুবিধাও রয়েছে।

এই অ্যাপল আইফোন ১৪-এ সহজেই ব্যবহার করা যাবে এবং এর সবগুলি বৈশিষ্ট্যের মধ্যে উচ্চ গ্রেড ডিসপ্লে, পাওয়ারফুল প্রসেসর এবং এক্সট্রা স্টোরেজ সহ অবাক করা যেতে পারে। এটি ব্যবহারকারীদের জন্য একটি প্রিমিয়াম অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করে, যে সাথে এগিয়ে চলতে পারে বিভিন্ন বৈকল্পিক ফিচার এবং টেকনোলজির মাধ্যমে। এছাড়াও, এর ক্যামেরা সেটআপ প্রিমিয়াম ফোটোগ্রাফির অভিজ্ঞতা প্রদান করে, যা ব্যবহারকারীদের নিজের জীবনের অদৃশ্য মুহূর্ত সংরক্ষণ করতে সাহায্য করতে পারে।

সচরাচর জিজ্ঞাস্য

আইফোনের ব্যাটারি লাইফ ব্যবহারের ধরন এবং ব্যবহারের প্রধান পরিমাণে ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে, কিন্তু সাধারণত ১০-১২ ঘণ্টা ব্যবহার করা যায়।

আইফোনের পরিবর্তে ব্যবহারকারীরা অন্য ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন বিবেচনা করতে পারেন, যেগুলির মধ্যে সাধারণত স্বল্পমুল্যে বিভিন্ন অপশন রয়েছে।

এই আইফোনের মূল্য কমার কারণের মধ্যে অনেক কারণ থাকতে পারে, যেমন বাজারের প্রতিস্থাপন, নতুন মডেলের আগমন, ব্যবহারকারীদের প্রযুক্তিতে আগ্রহ এবং অন্যান্য কারণ।

সাধারণত, আইফোনের কেনার সময় উপলব্ধ হয় এক বছরের মৌলিক গ্যারান্টি যা ডিভাইসের সাথে যুক্ত থাকে।

No Content

উপসংহার

প্রায় 3 কোটি মানুষ এই iPhone নিয়েছেন, যা স্পষ্টভাবে এই ডিভাইসের প্রতিষ্ঠিত গুনগত মূল্য এবং অনুভবে আগ্রহ প্রদর্শন করে। নিজের জন্য এটি পেতে সর্বনিম্ন ২৩,০০০ টাকা পরিমাণের প্রস্তাব অনেক স্বরূপ। এই সাশ্রয়ী মূল্যের কারণে ব্যক্তিরা এই উন্নত স্মার্টফোনের লাভ উঠাতে সক্ষম হতে পারেন, যা তাদের ডিজাইন, কার্যক্ষমতা, এবং অনুভূতির সাথে মিলে যায়। এই প্রযুক্তিগত উন্নতি নিয়ে আগ্রহ দেখানোর ফলে, আইফোন এখন একটি জনপ্রিয় এবং প্রাচুর্যমুলক উপকারিতা সম্পন্ন স্মার্টফোন হিসেবে গণ্য হয়েছে। তাছাড়া, এই মূল্যবিন্যাস ক্রেতাদের বিভিন্ন সুযোগ এবং আকর্ষণীয় সুবিধা প্রদান করে, যা অনুসরণ করে এটির বেশি পছন্দ হতে পারে। এই প্রযুক্তিগত উন্নতির সাথে সম্পৃক্ত কারণে, এই স্মার্টফোন আধুনিক প্রযুক্তির সাথে আত্ম-সন্তুষ্টি এবং জীবনযাত্রার সুবিধা নিশ্চিত করে।

Leave a Comment